অঙ্কবাচক, পরিমাণ/গণনাবাচক, ক্রম/পূরণবাচক, তারিখবাচক ও রোমান সংখ্যা

অঙ্কবাচক, পরিমাণগণনাবাচক, ক্রমপূরণবাচক, তারিখবাচক ও রোমান সংখ্যা


অঙ্কবাচক, পরিমাণ/গণনাবাচক, ক্রম/পূরণবাচক, তারিখবাচক ও রোমান সংখ্যা

প্রাথমিক বিদ্যলয়ের পঞ্চম শ্রেণি থেকে শুরু করে চাকরির পড়ালেখা পর্যন্ত এই অঙ্কবাচক, পরিমাণ/গণনাবাচক, ক্রম/পূরণবাচক, তারিখবাচক ও রোমান সংখ্যাগুলো প্রয়োজন হয়।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনির শিক্ষার্থীদের ইংরেজি বইয়ে unit 5, days in a calendar এর মধ্যে কার্ডিনাল ও অর্ডিনাল সংখ্যার ব্যবহার শেখানো হয়েছে। কিন্তু সেখানে cardinal and ordinal numbers examples গুলো দেওয়া নাই। তাই শিক্ষার্থীদের এগুলো শিখতে সমস্যা হয়।

শুধু class five এর শিক্ষার্থী নয় অনেক মাধ্যমিক পড়ুয়া শিক্ষার্থীও এই cardinal and ordinal numbers সম্পর্কে ধারনা রাখে না। তাই আমরা আজ এই কার্ডিনাল ও অর্ডনাল অর্থাৎ অঙ্কবাচক সংখ্যা ও ক্রমবাচক/পূরণবাচক সংখ্যা নিয়ে আলোচনা করবো। এবং সেই সংখ্যাগুলোর সকল উদাহরণ দেখবো।

প্রথমে কিছু পশ্নের উত্তর জেনে নেওয়া যাক।

সংখ্যাবাচক শব্দ কাকে বলে?

যে শব্দ কোনো কিছুর সংখ্যা প্রকাশ করে তাদেরকে সংখ্যাবাচক শব্দ বলে।

সংখ্যাবাচক শব্দ কত প্রকার?

সংখ্যাবাচক শব্দ চার প্রকার।
সংখ্যাবাচক শব্দগুলো কী কী?

সংখ্যাবাচক শব্দগুলো হলোঃ

  • অঙ্কবাচক সংখ্যা
  • পরিমাণ/গণনাবাচক সংখ্যা
  • ক্রম/পূরণবাচক সংখ্যা
  • তারিখবাচক সংখ্যা

cardinal বা অঙ্কবাচক সংখ্যা কাকে বলে? 

অঙ্ক দ্বারা কোনো কিছুর পরিমাণ বা সংখ্যা লিখলে তাকে অঙ্কবাচক সংখ্যা বলে।

অঙ্কবাচক সংখ্যার উদাহরণঃ ১ টি আপেল, ১০০ টি গরু।

সংখ্যার সকল উদাহরণ নিচে দিখুন।

পরিমাণ/গণনাবাচক সংখ্যা কাকে বলে? 

কোনো কিছুর পরিমাণ অঙ্কে না লিখে যদি ভাষায় বানান করে লেখা হয় তবে তাকে পরিমাণ বা গণনাবাচক সংখ্যা বলে।

পরিমাণ বা গণনাবাচক সংখ্যার উদারহণ: একটি আপেল, এক শত গরু ইত্যাদি

ক্রম/ পূরণবাচক সংখ্যা কাকে বলে?

যে সংখ্যা কোনো একই সারি, দল, বা শ্রেণিতে অবস্থিত ব্যক্তি বা বস্তুসমূহের ক্রম বা পর্যায় বোঝায় তাকে ক্রমবাচক বা পূরণবাচক সংখ্যা বলে।

ক্রম/পূরণবাচক সংখ্যার উদাহরণ: প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় [আরো দেখুন নিচে]

তারিখবাচক সংখ্যা কাকে বলে?

যে সংখ্যা দ্বারা বাংলা মাসের তারিখ বোঝানো হয় সেই সকল সংখ্যাকে তারিখবাচক সংখ্যা বলে।

তারিখবাচক সংখ্যার উদাহরণ: পহেলা, দোসরা, তেসরা  [আরো দেখুন নিচে]

রোমান সংখ্যা কাকে বলে?

রোম দেশের যে সংখ্যা ব্যবহার হতো এবং ব্যবহার হয়। সেই সংখ্যাকে রোমান সংখ্যা বলে।

তবে রোম নয় এখন সারা বিশ্বে এই রোমান সংখ্যা কিছু কিছু ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। আমাদের দেশ তথা বাংলাদেশেও এর ব্যতিক্রম নয়। আমাদের দেশে শিক্ষার্থীক্ষেত্রে এই রোমান সংখ্যার ব্যবহার অনেক। 

রোমান সংখ্যার উদাহরণঃ i, ii, iii, iv, v  [আরো দেখুন নিচে]

নিচে যেগুলো দেওয়া থাকবে

  • অঙ্কবাচক সংখ্যা ১-১০০
  • পরিমাণ/গণনাবাচক সংখ্যা ১-১০০
  • ক্রম/পূরণবাচক সংখ্যা ১-১০০
  • তারিখবাচক সংখ্যা ১-৩১

 

অঙ্কবাচক সংখ্যা

পরিমাণ/ সংখ্যাবাচক সংখ্যা

ক্রম/ পূরণবাচক সংখ্যা

তারিখবাচক সংখ্যা

রোমান সংখ্যা

এক

প্রথম

পহেলা

i

দুই

দ্বিতীয়

দোসরা

ii

তিন

তৃতীয়

তেসরা

iii

চার

চতুর্থ

চৌঠা

iv

পাঁচ

পঞ্চম

পাঁচই

v

ছয়

ষষ্ঠ

ছউই

vi

সাত

সপ্তম

সাতই

vii

আট

অষ্টম

আটই

viii

নয়

নবম

নউই

ix

১০

দশ

দশম

দশই

x

১১

এগার

একাদশ

এগারই

xi

১২

বার

দ্বাদশ

বারই

xii

১৩

তের

ত্রয়োদশ

তেরই

xiii

১৪

চৌদ্দ

চতুর্দশ

চৌদ্দই

xiv

১৫

পনের

পঞ্চদশ

পনেরই

xv

১৬

ষোল

ষষ্ঠদশ

ষোলই

xvi

১৭

সতের

সপ্তদশ

সতেরই

xvii

১৮

আঠার

অষ্টাদশ

আঠারই

xviii

১৯

উনিশ

ঊনবিংশ

উনিশই

xix

২০

বিশ

বিংশ

বিশে

xx

২১

একুশ

একবিংশ

একুশে

xxi

২২

বাইশ

দ্বাবিংশ

বাইশে

xxii

২৩

তেইশ

ত্রয়োবিংশ

তেইশে

xxiii

২৪

চব্বিশ

চতুর্বিংশ

চব্বিশে

xxiv

২৫

পঁচিশ

পঞ্চবিংশ

পঁচিশে

xxv

২৬

ছাব্বিশ

ষট্‌বিংশ

ছাব্বিশে

xxvi

২৭

সাতাশ

সপ্তবিংশ

সাতাশে

xxvii

২৮

আটাশ

অষ্টাবিংশ

আটাশে

xxviii

২৯

ঊনত্রিশ

ঊনত্রিংশ

ঊনত্রিশে

xxix

৩০

ত্রিশ

ত্রিংশ

ত্রিশে

xxx

৩১

একত্রিশ

একত্রিংশ

একত্রিশে

xxxi

৩২

বত্রিশ

দ্বাত্রিংশ

 

xxxii

৩৩

তেত্রিশ

ত্রয়োত্রিংশ

 

xxxiii

৩৪

চৌত্রিশ

চতুর্ত্রিংশ

 

xxxiv

৩৫

পঁয়ত্রিশ

পঞ্চত্রিংশ

 

xxxv

৩৬

ছত্রিশ

ষট্‌ত্রিংশ

 

xxxvi

৩৭

সাঁইত্রিশ

সপ্তত্রিংশ

 

xxxvii

৩৮

আটত্রিশ

অষ্টাত্রিংশ

 

xxxviii

৩৯

ঊনচল্লিশ

ঊনচত্বারিংশ

 

xxxix

৪০

চল্লিশ

চত্বারিংশ

 

XL

৪১

একচল্লিশ

একচত্বারিংশ

 

XLI

৪২

বিয়াল্লিশ

দ্বিচত্বারিংশ

 

XLII

৪৩

তেতাল্লিশ

ত্রয়শ্চত্বারিংশ

 

XLIII

৪৪

চুয়াল্লিশ

চতুঃচত্বারিংশ

 

XLIV

৪৫

পঁয়তাল্লিশ

পঞ্চচত্বারিংশ

 

XLV

৪৬

ছিচল্লিশ

ষট্‌চত্বারিংশ

 

XLVI

৪৭

সাতচল্লিশ

সপ্তচত্বারিংশ

 

XLVII

৪৮

আটচল্লিশ

অষ্টচত্বারিংশ

 

XLVIII

৪৯

ঊনপঞ্চাশ

ঊনপঞ্চাশৎ

 

XLIX

৫০

পঞ্চাশ

পঞ্চাশৎ

 

L

৫১

একান্ন

একপঞ্চাশৎ

 

li

৫২

বায়ান্ন

দ্বিপঞ্চাশৎ

 

lii

৫৩

তিপ্পান্ন

ত্রিপঞ্চাশৎ

 

liii

৫৪

চুয়ান্ন

চতুঃপঞ্চাশৎ

 

liv

৫৫

পঞ্চান্ন

পঞ্চপঞ্চাশৎ

 

lv

৫৬

ছাপ্পান্ন

ষট্‌পঞ্চাশৎ

 

lvi

৫৭

সাতান্ন

সপ্তপঞ্চাশৎ

 

lvii

৫৮

আটান্ন

অষ্টপঞ্চাশৎ

 

lviii

৫৯

ঊনষাট

ঊনষষ্টি

 

lix

৬০

ষাট

ষষ্টি

 

lx

৬১

একষট্টি

একষষ্টি

 

lxi

৬২

বাষট্টি

দ্বিষষ্টি

 

lxii

৬৩

তেষট্টি

ত্রিষষ্টি

 

lxiii

৬৪

চৌষট্টি

চতুঃষষ্টি

 

lxiv

৬৫

পঁয়ষট্টি

পঞ্চষষ্টি

 

lxv

৬৬

ছেষট্টি

ষট্‌ষষ্টি

 

lxvi

৬৭

সাতষট্টি

সপ্তষষ্টি

 

lxvii

৬৮

আটষট্টি

অষ্টষষ্টি

 

lxiii

৬৯

ঊনসত্তর

ঊনসপ্ততি

 

lxix

৭০

সত্তর

সপ্ততি

 

lxx

৭১

একাত্তর

একসপ্ততি

 

lxxi

৭২

বাহাত্তর

দ্বিসপ্ততি

 

lxxii

৭৩

তিয়াত্তর

ত্রিসপ্ততি

 

lxxiii

৭৪

চুয়াত্তর

চতুঃসপ্ততি

 

lxxiv

৭৫

পঁচাত্তর

পঞ্চসপ্ততি

 

lxxv

৭৬

ছিয়াত্তর

ষট্‌সপ্ততি

 

lxxvi

৭৭

সাতাত্তর

সপ্তসপ্ততি

 

lxxvii

৭৮

আটাত্তর

অষ্টসপ্ততি

 

lxxviii

৭৯

ঊনআশি

ঊনাশীতি

 

lxxix

৮০

আশি

অশীতি

 

lxxx

৮১

একাশি

একাশীতি

 

lxxxi

৮২

বিরাশি

দ্ব্যশীতি

 

lxxxii

৮৩

তিরাশি

ত্র্যশীতি

 

lxxxiii

৮৪

চুরাশি

চতুরশীতি

 

lxxxiv

৮৫

পঁচাশি

পঞ্চাশীতি

 

lxxxv

৮৬

ছিয়াশি

ষড়শীতি

 

lxxxvi

৮৭

সাতাশি

সপ্তাশীতি

 

lxxxvii

৮৮

আটাশি

অষ্টাশীতি

 

lxxxviii

৮৯

ঊননব্বই

ঊননবতি

 

lxxxix

৯০

নব্বই

নবতি

 

xc

৯১

একানব্বই

একনবতি

 

xci

৯২

বিরানব্বই

দ্বিনবতি

 

xcii

৯৩

তিরানব্বই

ত্রিনবতি

 

xciii

৯৪

চুরানব্বই

চতুর্নবতি

 

xciv

৯৫

পঁচানব্বই

পঞ্চনবতি

 

xcv

৯৬

ছিয়ানব্বই

ষন্নবতি

 

xcvi

৯৭

সাতানব্বই

সপ্তনবতি

 

xcvii

৯৮

আটানব্বই

অষ্টনবতি

 

xcviii

৯৯

নিরানব্বই

নবনবতি

 

xcix

১০০

একশত

একশত

 

c

 

রোমান সংখ্যায় ১-১০০০০ লেখা যাবে নিচের তথ্য ব্যবহার করে।

চিহ্ন

মান

I

1

V

5

X

10

L

50

C

100

D

500

M

1000

 



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন