(সপ্তম) ৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১

(সপ্তম) ৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১


মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর আবার তোমাদের জন্য ৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১ প্রকাশ করেছে। এই সপ্তম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর উত্তর তোমরা হয়তো খুঁজছো। তোমাদের সুবিধার্তে এই ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ৭ম শ্রেণির উত্তর বিজ্ঞান নিয়ে আমরা হাজির হলাম। 

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১


৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ এ তোমাদের দুইটি বিষয়ের উপর এসাইনমেন্ট লিখতে হবে। সেই দুটি বিষয় হলো, বিজ্ঞান ও চারু ও কারুকলা।

তোমরা যারা ৭ম শ্রেণিতে পড়ো তাদের জন্য আমাদের নমুনা উত্তরটি যথেষ্ট নির্ভূল ‍ও গ্রহনযোগ্য হবে। এই ৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট উত্তর লিখতে তোমরা মূল্যায়নে খুব ভালো পাবে আশা করা যায়।

৭ম শ্রেণির এসাইনমেন্ট বিজ্ঞান এর উত্তর লেখার আগে তোমাদের অবশ্যই এই অ্যাসাইনমেন্টের প্রশ্নগুলো ভালো করে পড়ে নিতে হবে। বিজ্ঞান প্রশ্নটি না পড়লে তোমরা উত্তর যথাযথ দিতে পারবেনা।

আরো পড়ুনঃ 





তাই তোমাদের বিজ্ঞান উত্তর লেখার সুবিধার্তে এসাইনমেন্টের প্রশ্নগুলো নিচে দেওয়া হলো।

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট

শ্রেণিঃ সপ্তম
বিষয়ঃ বিজ্ঞান
এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজের ক্রমঃ
এসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজ-১
অধ্যায় ও অধ্যায়ের শিরোনামঃ 
প্রথম অধ্যায়: নিম্ন শ্রেণির জীব

পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত পাঠ নম্বর ও বিষয়বস্তুঃ

পাঠ-১,২: অণুজীব জগৎ, পাঠ-১,২: অণুজীব জগৎ, পাঠ-৩, ৪: ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া, পাঠ-৫, ৬
: ছত্রাক, শৈবাল ও আ্যামিবা, পাঠ-১০: মানব দেহে অনুজীব সৃষ্ট স্বাস্থ্য ঝুঁকি প্রতিরোধ ও প্রতিকার,
পাঠ-৮, ৯: স্বাস্থ্য ঝুকিতে সৃষ্টিতে অনুজীবের ভূমিকা, পাঠ-১০: মানব দেহে অনুজীব সৃষ্ট স্বাস্থ্য ঝুঁকি
প্রতিরোধ ও প্রতিকার।

এ্যাসাইনমেন্ট বা নির্ধারিত কাজঃ

১। তোমার বাড়ীর দেওয়ালে অথবা আশে পাশের দেওয়ালে যে সাদা ও সবুজ রং কী কারনে হয় বলে
তুমি মনে কর।

২। তোমার শরীরে হালকা জ্বর ও ডাইরিয়া কী কারনে হয় বলে তুমি মনে কর।

৩। স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ও নিরাপদ পানি তোমার জীবনে কতটুকু গুরুত্ব বহন করে - যৌক্তিকতা
নিরুপন করে ব্যাখ্যা কর।


নির্দেশনাঃ 
১। শৈবাল ও সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে।
২। ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে ধারণা নিতে হবে।
৩। ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও এন্টামিবার কারনে সৃষ্ট রোগ সম্পর্কে জানতে হবে।

মূল্যায়ন রুব্রিক্সঃ
অতি উত্তম:

১। ৩টি প্রশ্নের উত্তর সঠিক ও ধারাবাহিকভাবে লেখা।
২. প্রশ্নের উত্তরে তথ্য, তত্ব ও ধারণা পাঠ্যপুস্তকের সাথে সম্পূর্ণ সঙ্গতিপূর্ণ হলে।
৩। প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষার্থীর নিজন্বতা ও সৃজনশীলতা থাকলে।

উত্তম:

১। ২টি প্রশ্নের উত্তর সঠিক ও ধারাবাহিকভাবে লেখা।
২। ২টি প্রশ্নের উত্তরে তথ্য, তত্ব ও ধারণা পাঠ্যপুস্তকের সাথে সম্পূর্ণ সঙ্গতিপূর্ণ হলে।
৩। ২টি প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষার্থীর নিজন্বতা ও সৃজনশীলতা থাকলে।

ভাল:

১। ৩টি প্রশ্নের উত্তর সঠিক থাকলে ও ধারাবাহিকতার অভাব থাকলে।
২। ৩টি প্রশ্নের উত্তরে তথ্য, তন্ত ও ধারণা আংশিকভাবে সঙ্গতিপূর্ণ হলে।
৩। প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষার্থীর সামান্যমাত্রায় নিজস্বতা ও সুজনশীলতা থাকলে।

অগ্রগতি প্রয়োজন:

১। ৩টি প্রশ্নের উত্তর সঠিকতা ও ধারাবাহিকতার অভাব থাকলে।
২। ৩টি প্রশ্নের উত্তরে তথ্য, তত্ব ও ধারণার সঙ্গতির অভাব হলে।
৩. প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষার্থীর নিজন্বতা ও সৃজনশীলতা না থাকলে।

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট




তোমরা যারা সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই তোমাদের এসাইনমেন্ট লিখতে দেওয়া মূল উদ্দেশ্য হলো তোমরা যেন পড়ালেখার মধ্যে থাকো এবং তোমাদের বইয়ের সাথে সম্পর্ক থাকে সেই সাথে তোমরা অ্যাসাইনমেন্টের বিষয়গুলো পড়ো এবং নিজের মত করে লিখো। এখানে সপ্তম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর উত্তর যেটি দেওয়া থাকবে সেটি কেবলমাত্র একটি নমুনা উত্তর। তাই তোমাদের নমুনা উত্তরটি পথমে পড়া উচিত এবং এই উত্তরটির উপর ভিত্তি করে তোমার নিজের মত করে একট ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ৭ম শ্রেণির বিজ্ঞান উত্তর লেখা উচিত।

৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর উত্তর ২০২১


অ্যাসাইনমেন্ট  শুরু

১নং প্রশ্নের উত্তর
সমাঙ্গদেহী ক্লোরোফিলবিহীন অসবুজ উদ্ভিদকে ছত্রাক বলে। ক্লোরোফিলের অভাবে এরা নিজের খাদ্য নিজে তৈরি করতে পারে না তাই এরা পরোভোজী বা মৃতোভোজী হয়ে থাকে। বাসি ও পচা খাদ্যদ্রব্য, ফলমূল, শাকসবজি, ভেজা রুটি বা চামড়া, গোবর, মাটি, উদ্ভিদ ও প্রাণীর দেহ, পচনশীল জীবদেহে বাস করে। তবে স্থলজ ছত্রাকগুলো সাধারণত জৈব পদার্থ বিশেষ করে হিউমাস সমৃদ্ধ মাটিতে ভাল জন্মে।

সমাঙ্গবর্গীয় ক্লোরোফিলযুক্ত, সলোকসংশ্লেষনকারী, স্বভোজী ও অপুষ্পক উদ্ভিদকে শৈবাল বলা হয়। এরা আলোকিত স্থান পছন্দ করে। এরা মাটি, পানি ও অন্য গাছের উপর জন্মায়। সবুজ ছাড়াও লাল, বাদামি ইত্যাদি রঙের হয়ে থাকে। সুতরাং বলা যায় আমার বাড়ির দেওয়ালে অথবা আশে পাশের দেওয়ালে যে সাদা ও সবুজ রং তা ছত্রাক ও শৈবালের কারনে হয়ে থাকে।

২নং প্রশ্নের উত্তর
আমার শরীরে হালকা জ্বর ও ডায়রিয়া সাধারণত অণুজীবের কারণে হয়ে থাকে। যে সমস্ত ক্ষুদ্র জীব অনুবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্য ছাড়া খালি চোখে দেখা যায় না তাদেরকে অনুজীব বলে। অনুজীবগুলোর মধ্যে কোনো কোনোটি রোগ সৃষ্টি করে আবার কোনো কোনটি পশু বা পাখির দেহে অবস্থান করলেও কোনো রোগ সৃষ্টি করে না। যেসব অনুজীব দেহে রোগ সৃষ্টি করে তাদেরকে রোগজীবাণু বলে । এগুলোর মধ্যে ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, মাইকোপ্রাজমা, ছত্রাক, প্রোটোজোয়া ইত্যাদি গুরুতৃপূর্ণ ।

ব্যাকটেরিয়ার জীবাণু দেহাভ্যন্তরে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় প্রবেশ করতে পারে। অপরিষ্কার হাত জীবাণুর জন্য একটি সুবিধাজনক মাধ্যম। যার মাধ্যমে সহজেই এরা মুখগহব্বরে প্রবেশ, করতে পারে। আমরা যে জামা কাপড় ব্যবহার করি, তাতে লেগে ব্যাকটেরিয়ার স্পোর স্থানান্তরিত হতে পারে। বাতাসে ধুলাবালি উড়ে বেড়ায় তার সাথে অতি সহজেই' ব্যাকটেরিয়া বা তার স্পোর এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সহজেই যেতে পারে। হাত মেলানোর মাধ্যমেও ব্যাকটেরিয়ার একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে সহজেই স্থানান্তরিত হতে পারে। পচা ও বাসি খাবারের মাধ্যমে জীবাণু সহজেই ছড়াতে পারে। ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ও এন্টামিবা ইত্যাদি অণুজীব মানুষের শরীরে বিভিন্ন রোগ সৃষ্টির জন্য দায়ী।

৩নং প্রশ্নের উত্তর
স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করা ও নিরাপদ পানি পান করা শুধু আমার জন্যই নয় সুস্থ্য থাকার জন্য আমাদের সবার জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কথায় আছে, পানির অপর নাম জীবন। পানি ছাড়া জীবনের অস্তিত্ব কখনোই কল্পনা করা যায় না। পানি নেই বলে অন্য কোন গ্রহে জীবনের অস্তিত্ব এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি। শুধু জীবন কেন, মানব সভ্যতাও গড়ে উঠেছে এই পানিকে ঘিরেই। আর তাই খাবার-পানি নিরাপদ হওয়া খুবই জরুরী। কলেরা, টাইফয়েড ইত্যাদি ব্যাকটেরিয়া সৃষ্ট রোগ থেকে বাঁচতে অবশ্যই নিরাপদ পানি ব্যবহার করতে হবে। পান করা, গোসল ও কাপড় কাচা, বাসন ধোওয়া ইত্যাদির জন্য নিরাপদ পানি ব্যবহার করা উচিত। ও আর্সেনিক মুক্ত টিউবওয়েলের পানি নিরাপদ । পুকুর ও নদীর পানি ব্যবহারের পূর্বে ২০ মিনিট ফুটিতে নিতে হব । অন্যথায়, আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু পরযন্ত হতে পারে।

যত্রতত্র মলমূত্র ত্যাগের কারণেও স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা সৃষ্টি হয়। এসব মলমৃত্রে যে রোগজীবাণু থাকে তা ভক্ষণকারী অন্য জীব এগুলোকে ছড়িয়ে দেয়। এছাড়া বৃষ্টি, বন্যা বা জোয়ারের পানির মাধ্যমে এগুলো দুর-দুরান্তে ছড়িয়ে পড়ে। আমাদের দেশের অনেক স্থানে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা নেই এবং এসব অঞ্চলের মানুষ মাঠ বা কঁচা পায়খানা ব্যবহার করে। এন্টামিবায় আক্রান্ত ব্যক্তির মল মাঠের মাটিতে মিশে যায়। এ মাটিতে হাত লাগলে বা এ মাটিতে যে সবজি চাষ করা হয় তাতে এসব জীবাণু লেগে থাকে | সবজির ভিতরেও এরা প্রবেশ করে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় রান্নার পরেও এ সকল জীবাণু বেঁচে থাকে। আর এভাবেই সুস্থ্য মানুষও এন্টামিবা সংক্রমিত হয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। তােই  আমাদের  সবারই স্বাস্থ্যসম্মত  পায়খানা ব্যবহার এবং নিরাপদ পানি পান করা উচিত।

অ্যাসাইনমেন্ট শেষ

আরো পড়ুুনঃ 

সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য আমরা কয়েকটি নমুনা উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো। কারণ তোমরা অনেকে সাইট ফলো করে হুবুহু লিথে থাকো। তাই তোমাদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তরগুলো সকলের সাথে মিলে যাবে। এমনটি সবার এসাইনমেন্ট একই রকম হয়ে যেতে পারে। নমুনা উত্তর কয়েকটি থাকলে তোমরা এক একজন এক একটি ফলো করে লিখতে তা আলাদা হবে আশা করা যায়।
তাই সেই চিন্তা ভাবনা থেকে সপ্তম শ্রেণির বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর কয়েকটি নমুনা উত্তর দেওয়ার আমরা চেষ্টা করবো।

সপ্তম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট ২০২১১


৭ম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ এর সকল বিষয়ের সকল শ্রেণির এসাইনমেন্ট তোমরা এই সাইটে পেয়ে যাবে। তাই তোমাদের সকল এসাইনমেন্টের ‍উত্তর পেতে তোমরা আমাদের সাথেই থাকবে। এবং অ্যাসাইনমেন্ট উত্তরগুলো দ্রুত পেতে তোমরা আমাদের ফেজুবক পেজে লাইক দিয়ে রাখতে পারো অথবা আমাদের ফেজবুক গ্রুপে সদস্য হতে পারো অথবা আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবসক্রাইব করে রাখাতে পারো। নিচে আমাদের সকল সোসাল মিডিয়ার লিংক দেওয়া থাকবে।

আমাদের ইউটিউব লিংক

ফেজবুক পেজ (সমস্যা ও সমাধান)

assignment all class (6-9)📝📝